শুভজিৎ রায়-এর কবিতা

লাল রঙে জাদু আছে

পথে যেতে যেতে হঠাৎ বুঝলাম কালো জমেছে, যেন আমিই জমে আছি। বেশ, অপেক্ষায় ছিলাম। শান্ত হওয়ার।

পারছিলাম না টানতে একগোছা চুলের ন্যায় গোটা শরীরকে,

পারিনি তিতো হয়ে যাওয়া শরীরকে বুঝতেও!

পারতাম তবে, ভিড়ে মিশে গিয়েছিলাম। লাল কাপড়ের মধ্যে,

একদম নতুন লাল কাপড়-

অনেকক্ষণ হলো, শব্দ আসছে না। অনেক যোগ হলো, শব্দ শোনা যায় কিনা বুঝতে পারার-

না নেই তো!

না, এদিকেই ঠিক ছিল…

না না, আরেকটু ঠুনকো শব্দ আসার কথা ছিল!

কয়েকশো মিটার দুরের কথা,

পারাপার হয়ে যাচ্ছি, একান্তভাবে; একান্ত গো(পণে)

আপনি খুঁজে নিন স্টেশন মাস্টার, দেখুন আমরা এধারে-ওধারে ধরা দিয়েছি।

আপনি,

খুশি তো!

সভ্য মাহাতো

সুতো হয়ে উঠতে উঠতে খুব শক্ত হয়ে গেছি,

বড্ড আমিষী তরলের মত

কেন কি! বুঝুন, যেখানে সভ্যতা অনেক শিল্পের কথা বলে।

কথা বলে, সুস্থ নাবালিকার!

কথা বলে, গোপন অঙ্গের গুপ্ত রোগের!

কথা বলে, অনেক হাহাকারের!

কথা বলে, দার্শনিক হওয়ার!

কথা বলে, ঐ যে ছত্রধর মাহাতোর!

ছত্রধর মাওবাদী হয়ে গেছে, তকমায়-

আপনি ঐ বলা কথাগুলোকে মানতে পারছেন তো!

Facebook Comments
Advertisements

1 thought on “শুভজিৎ রায়-এর কবিতা Leave a comment

  1. প্রথম কবিতাটা ভালো লাগলো না। দ্বিতীয়টা বেশ ভালো।

Leave a Reply