মণিদীপা সেন-এর কবিতা

শূন্যএর কবিতা

.

গভীরতা চরম শত্রু

ইশ্বর সর্বোচ্চ অসুবিধা লিখেছেন

অস্বাভাবিকতা  দিয়েছেন এইখানে

বুকের কাঁচবাক্সে খুবলানো মাটি

শব্দবোধঅক্ষরের ঝুটো পর্দার আড়ালে

কাঁঁচবাক্সে পুষি ঠান্ডা কুণ্ডলী

আয়না দেখিনা

চশমা দিয়ে ঘুম আটকাই

ঘুম ভাঙে

তাড়া খাই

পালাতে পালাতে

শূন্যতায়

রুক্ষতায়

খড়ি ফুটে যায় জিভ

সবুজের ঘাটতিতে থেমে যায়

ইন্টারনাল রেসপিরেশন।

মৃত কোষের ছাই সরিয়ে খুঁজি দমিত গভীর

এই গভীরতাই চিবিয়ে নেয় হাতের নিশ্বাস

এই গভীরতাই চরম শত্রু।

.

সোজা শুয়ে ঘুমিয়ে যাচ্ছে শূন্য মানুষ

তার শেষ খাওয়া বোতলজলে উবু হয়ে আছে দুঃখ

একটা “না” সেই শূন্যের মত

দিক বদলালে বদলে যাচ্ছে পুরোটাই

.

আপাতত শূন্য…

শূন্য

    শূন্য  

হাওয়া

বাঁধা পাচ্ছে না

এক-এ

এক-র অভাবে প্রতিষ্ঠিত

শূন্য

আকারহীন ভরহীন ভারহীন

কালোয় দোল খায়

অযথা যত্নে রোদ ওঠে

নীল পায়রা কার্নিশ ছুঁয়ে

শব্দের মাথায় বসে

মাত্রা

ছেড়ে ছিঁড়ে কেমন অচেনা লাগে

বানান

লিখতে যাই

হাতড়াই

ভুল ভুল ভুল

শব্দ

আমার ভাষা ছেড়ে চলে যাচ্ছে

অ-জড় উড়ান

শূন্যে

এক-র অভাবে শূন্যস্থান ইনফাইনাইট

এখন

 রেফ্রিজারেটরে রাখা কিছু সেঁকা মাংস

নির্দেশিকা অনুযায়ী বের করছি

পরিবেশন করছি।

Facebook Comments

Leave a Reply