আপনি কি জানেন, অপরজন এখন প্রকাশনার পথে? অপরজন প্রকাশনীর ছয়টি বই এখন প্রকাশের অপেক্ষায়। বইগুলির নাম খুব শিগ্রীই জানানো হবে।

অনুবাদ কবিতা : রুণা বন্দ্যোপাধ্যায়

Bob Holman

বব হোলম্যান ও তাঁর ভেঁপু

 

২০১৮ বইমেলা। প্রথম আলাপ হল এক প্রাণবন্ত কবি বব হোলম্যানের সঙ্গে। জন্ম ১৯৪৮ সালে আমেরিকার লাফোলেট শহরের এক ইহুদি পরিবারে। কলম্বিয়া কলেজের ইংরিজির স্নাতক। তিনি কবিতার oral tradition, poetry slam বা কবিতার মৌখিক সংস্কৃতির এক ধারক ও বাহক। যাদবপুর ইউনিভার্সিটিতে যখন প্রথম তাঁর কবিতা শুনলাম, বুঝতে পারলাম তিনি একাধারে কবি ও পারফর্মার। কবিতামঞ্চে শুরু হলো তাঁর কবিতাপাঠ, “Honk”। তিনি কবিতাপাঠ করলেন না বরং বলা যায় কবিতামঞ্চ হয়ে উঠল কবি ও শ্রোতাদের নিয়ে সমবেত কবিতার জমজমাট আসর। এই পৃথিবীতে বিপন্ন প্রজাতির পাশাপাশি কত মানুষের ভাষাও আজ বিপন্ন। বব হোলম্যান ২০১০ সালে ড্যানিয়েল কাফম্যান ও জুলিয়েট ব্লেভিনের সঙ্গে প্রতিষ্ঠা করেন Endangered Language Alliance, যার মিশন সম্পর্কে হোলম্যান বলেন, “We are so in awe of the power of the book that we’ve forgotten the power of sound and the magic of sense nested in sound. Everybody’s fighting for the preservation of species, but who’s fighting for the preservation of languages, which are in fact the souls…of culture itself?” বিপন্ন ভাষা নিয়ে কাজ করার জন্য তিনি “The Ostana Award” লাভ করেন। পশ্চিম আফ্রিকা ও ইসরায়েলের সংস্কৃতি ও ভাষা নিয়ে তাঁর বিখ্যাত ডকুমেন্টারি “On the Road With Bob Holman: A Poet’s Journey Into Global Cultures and Languages”। বব কবিতাকর্মী হিসেবেও বিখ্যাত। ২০০২ সালে তিনি আমেরিকার বিখ্যাত Bowery Poetry Club-এর প্রতিষ্ঠা করেন, যার অন্য পরিচয় “a Home for Poetry”, যেখানে প্রতিরাতে চলে কবিতার কর্মশালা। এই ক্লাব প্রতিষ্ঠার পর বব হোলম্যান দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসের এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, “They say no one has ever gone broke running a bar in New York, but we’re going to give it a shot.” হেনরী লুই গেটস জুনিয়র বব হোলম্যান সম্পর্কে যথার্থই বলেছিলেন, “the postmodern promoter who has done more to bring poetry to cafes and bars than anyone since Ferlinghetti.” তিনি একাধারে কবি, পরিচালক, নাট্যব্যক্তিত্ব, সম্পাদক, পারফর্মার, প্রকাশক, কবি, অধ্যাপক ও সংরক্ষক। তিনি KHONSAY: Poem of Many Tongues নামক কবিতা-সিনেমার পরিচালক, যা Viewer’s Choice Award লাভ করে নিউ দিল্লির Sadho Film Festival এ। তাঁর প্রকাশিত ১৭টি কবিতার বই: The Collect Call of the Wild(1995), Sing This One Back To Me(2013), The Cutouts(2017) Beach Simplifies Horizon(1998), Picasso In Barcelona(2011) ইত্যাদি। বিশদ http://bobholman.com/ মার্কিন কবি ও সঙ্গীতজ্ঞ জয় হার্জোর সঙ্গে ট্যাক্সিতে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে হোটেল ল্যান্ডমার্ক পৌঁছোনোর পথের অভিজ্ঞতা নিয়ে যে কবিতাটি লেখেন তার নাম “Honk”। অনুবাদ চলাকালীন আমাদের আলোচনা হয় কলকাতার নানা অনুষঙ্গ নিয়ে। আমি ব্যাখ্যা করি কলকাতার নানা বৈশিষ্ট্য এবং সেগুলো যুক্ত করে কবিতাটির নতুন রূপ দেন বব। তারই অনুবাদ এখানে। আসুন পাঠক, এবারে শুনি তাঁর ভেঁপু।

HONK (ভেঁপু) 

জয় হার্জোর সঙ্গে ট্যাক্সিতে,

কলকাতা বিমানবন্দর থেকে হোটেল ল্যান্ডমার্ক

 

উত্তাল নদীর এলোমেলোতায় নিক্ষিপ্ত কালো ট্যাক্সি!

রিকশা! টানারিকশা! সাইকেলরিকশা!

অটোরিকশা, মাথায় ঝালর! পাগল সাইকেল আরোহীরা!

নন্দির দোহাইত ধর্মের ষাঁড় গোবেচারি পারাপারে! গাড়িঘোড়া

আচমকা থেমে পড়া গঙ্গা! লজেন্সরং লরি, চোখ আঁকা

হেডলাইটের পাশে, দুর্ঘটনা এড়াও! বহুবর্ণ চিহ্ন

প্রতিটা ট্রাকের পিছনে –

 

দয়া করে হর্ন দিন

OK, সবাই একসাথে-

ভেঁপু!

 

ব্যক্তিগত নির্মাণের অবিরাম ঊর্ধগামী চিরন্তন চিৎকার ভেঁপু! ভেঁপু!

 

ভেঁপু! যদি তুমি এগোনো শুরু করো, যানসমুদ্রে কোনো রাস্তা নেই

ভেঁপু! ঠিক আছে, চলে এসো

ভেঁপু! ধন্যবাদ, আমি এখন আসছি, বিপজ্জনকভাবে কাছে

ভেঁপু! স্বাগতম, আমি এভাবেই পছন্দ করি, চলে এসো

ভেঁপু! বেশ আমিও! একরকম তোমার জন্যই পেয়েছি! তোমাকে জানাই লম্বা ভেঁএঁএঁএঁএঁএঁএঁপু!

ভেঁপু! দারুণ! আমি দ্রোণের মতো অসম্বন্ধ প্রলাপে মাতব ভেঁপুভেঁপুভেঁপু ভেঁএঁএঁএঁএঁএঁএঁপু!

ভেঁপু! বিদায় বন্ধু! ভালো এই কথোপকথন তোমার সঙ্গে

 

ভেঁপু বাজাও গায়েগায়ে লাগা গাড়ির দিকে

ভেঁপু বাজাও রাস্তার ওইপারে একইদিকে চলা সাইকেলের দিকে

ভেঁপু বাজাও থামার চিহ্নগুলোতে কিন্তু দয়া করে “থেমো না”

ভেঁপু বাজাও ট্যাক্সিচালকের দিকে যেমন তারাও বাজায়

ভেঁপু বাজাও রিকশার দিকে যারা টিনকৌটোয় ধোসা নিয়ে ধায়

বাজারে, ক্ষুধার্ত জনতা আছে অপেক্ষায় মধাহ্নভোজের

ভেঁপু বাজাও উড়োজাহাজপানে – সেও কি বাজাবে ভেঁপু?

অবশ্যই ভেঁপু বাজাও! যাত্রীরা যেই নামছে যেকোনও গাড়ি থেকে

ভেঁপু বাজাও গ্যাস স্টেশনে “তুমি কখনই জানো না”

কবিতা লেখো কখন ভেঁপু বাজাতে নেই!

 

ভেঁপুর চারপাশে গাড়ি নির্মাণ করো, ভেঁপু!

ভেঁপু! পবিত্র ভারতমাতা

প্রতিটা ভেঁপু কৃষ্ণ আরাধনা

ভেঁপু বাজাও যখন তুমি উড়ালপথের নিকটবর্তী

ভেঁপু বাজাও যখন তুমি পেরোচ্ছ

ভেঁপু বাজাও যখন তুমি উড়ালপথের ওপর দিয়ে উড়ছো  

ভেঁপু! ঘুমপাড়ানিয়া হাওড়া ব্রিজ

ভেঁপু! লেকবিহীন সল্টলেক

ভেঁপু! কালিঘাট আঙুলের ঝুমঝুমে গঙ্গাও দিকবদলে

ভেঁপু! চায়নাটাউন চীনারা গেল কই?

ভেঁপু! বইমেলা বৃহত্তম পৃথিবীতে

ভেঁপু! বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা একটা খেলা

ভেঁপু! কবিদের কফি হাউস গিন্সবার্গ ও সুনীল এবং হাংরিকবিদের ভূত

 

ভেঁপু বাজাও ভেজা ডায়াপার গন্ধে

ভেঁপু বাজাও সবুজ দূষণে

ভেঁপু! লিপ্ত পানপাতায়!

ভেঁপু বাজাও যদি তোমার ভেঁপু থাকে

ভেঁপু বাজাও যদি ভেঁপু নাও থাকে

 

এবং এখন ভেঁপু বাজানো লরির পিছনে জয় পড়ছে

“দয়া করে ভেঁপু ব্যবহার করুন”

  হর্ন দিন

মুসকোগী সঙ্গীতজ্ঞ কবি

মাথা দোলালেন উপলব্ধির ভাবে

সন্তর্পণে বাক্স খুললেন

স্যাক্সোফোন টেনে নিলেন, সরু আবলুস কাঠের

রীড রাখলেন মুখের ভেতর

যন্ত্র দিয়ে প্রাণায়াম

ধ্বনি ওঠে সেরেনডিং সিম্ফনি,

বেসুরো নির্ঝর

কলকাতা কনসার্ট ইন বি ফ্ল্যাট টিয়ার মেজর

ভেঁপু!

 

ইংরিজি সংস্করণ:

HONK!

Taxi Ride with Joy Harjo,
Kolkata Airport to Hotel Landmark

 

Hurling black taxi into mad river chaos!

Rickshaws! Rickshaw humans! Bicycle rickshaws!

Moped driven rickshaw surreys, fringe atop! Insane bicyclists!

Honest-to-Nandi Sacred Cow crossing unhurriedly! All traffic

Dead stop Ganges! Candy-colored trucks, eyes painted

Next to headlights, ward off accidents! Multicolored signs

On back of every truck —

PLEASE BLOW HORN!

OK , all together –

HONK!

Individual build constant crescendo eternity bleat Honk! Honk!!

 

Honk! As you start to pass, there are no lanes in traffic river

Honk! Ok, come on

Honk! Thanks, I am now coming, dangerously close

Honk! I see you, I like it this way, c’mon

Honk! Ok me too! Sort of got by you! and I wish to long Hooooooooooooooooonk! you

Honk! Fantastic! I shall staccato burst Honkonkonk as drone Honnnnnnnnnnnnnk

Honk! Goodbye! Good Honking you

 

Honk! at cars parked too close together

Honk! at bicycles going in the same direction on other side of the road

Honk! at stop signs but please “Do Not Stop”

Honk! at taxi drivers as they

Honk! at rickshaws as they paddle dhosas’ tin containers

to market, to hungry masses awaiting lunch curries

Honk! at planes overhead –will they Honk back?

Make sure to Honk! as passengers exit from any vehicle

Honk! at gas stations “you never know”

Write poem about When NOT to Honk!

 

Build car around horn Honk!

Honk! Holy Mother India

Every Honk! a prayer to Krishna

Honk! as you approach a fly over

Honk! as you fly over

Honk! as you take fly over over fly over

Honk! lullaby Howrah Bridge

Honk! Salt Lake with no lake

Honk! Khaligat big toe in Ganges changes direction

Honk! Chinatown where did the Chinese people go?

Honk! Book Fair biggest in the world

Honk! Universities learning is a sport

Honk! Poets Coffee House ghosts of Ginsberg and Sunil and Hungry Poets

 

Honk! at wet diaper smell

Honk! at green pollution

Honk! smeared on leaf– paan!

Honk! if you have horn

Honk! if you do not have horn

 

And now on back of (honk!ing) truck, Joy reads the words:

“Please Use Horn”

  HORN DEEN

The Muskogee musician poet
Nods with understanding authority

Gingerly opens case

Pulls out saxophone, ebony alto 

Places reed in mouth

Breath of fire through instrument

Emerges sounds a serenading symphony

A cascading cacophony

The Kolkata Concerto in B Flat Tire Major

 

HONK!

 

অনুবাদক:

কবি, গল্পকার, প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক রুণা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথাবিরুদ্ধ বাক্‌, সংস্কারবিরুদ্ধ রীতি তাঁর নির্মাণের ব্যসন, যেখানে দেয়াল ভাঙার মন্ত্রণা ঘরের ভেতর ঘর বাঁধার গল্প বলে। আর সেই বাক্‌রীতির খোঁজে যেমন ঘর বেঁধেছেন বাংলা বইকুণ্ঠে তেমনি খোঁজ করেছেন বিদেশী কাব্যতত্ত্ব। শূন্য দশকের কবি কলকাতায় বড় হয়ে উঠলেও আজ ২০ বছর মুম্বাইতে। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্থ: ৪টি কাব্যগ্রন্থ, ২টি গল্প, ১টি পাঠপ্রতিক্রিয়া, ও একটি গদ্যসংকলন। ২০১৯ এর বইমেলায় প্রকাশিত হয় একটি অ্যান্থোলজি, Bridgeable Lines: An Anthology of Borderless World Poetry in Bengali. ইংরেজি ভাষায় সদ্যপ্রকাশিত তাঁর Nocturnal Whistle(২০১৯) বইটি Recurring Poetry-র এক নতুন কাব্যশৈলী। এই কাব্যশৈলীর অনুসরণে ২০১৭ সালে বাংলা ভাষাতেও প্রকাশিত হয় তাঁর “তামসের আলোকভ্রমণ”।

Facebook Comments
Advertisements

Leave a Reply