বিবস্বান দত্ত-এর কবিতা

বর্ষা ২০১৭

বেদনা আমায় অস্থির করেছে আরো
সমস্ত রাত বৃষ্টি হয়ে পড়েছে এখানে
মরা ডালের মুখে এক ফোঁটায় আটকে আছে চাঁদ
এলোমেলো হতে হতে আমি শেষ জলকণা আঁকড়ে আছি

সকালে এই বিশুদ্ধ বাক্যগুলো লেখার পরে একটা গোটা দিন ঘটনা বহুল

ঘটনা বিশেষ কিছুই নয়
একটা শেষের সঙ্গে কয়েক বৃষ্টি পা হাঁটা

মৃত্যুর সময় নিজের মৃত্যু অনুভব করা সুখের
বুঝতে পারছি শ্রাবণ মৃত ।নাঃ, ম্রিয়মান

এই বর্ষা শেষ

জলের দাগ মাঝে মাঝে গভীর হয়ে ক্ষত
পৃথিবীর সমস্ত ক্ষতের বুকে ম্রিয়মাণ বৃষ্টি নিজের শেষ হাসিটুকু রেখে যাচ্ছে

হে অনাদি আকাশ, অনন্ত জলগর্ভী মেঘ
জন্মান্তরের ডাক আমি প্রথম শুনিনি
আমি দেখেছি ভাসান কীভাবে ভেসে যায়, বৃষ্টিতে

আমি আমার সমস্ত শব্দ সেই সমাপ্তির পায়ে রেখে আসি

আমি বলি, বিন্দু বিন্দু ক্ষয় দিয়ে পৃথিবী তৈরি
পৃথিবীর বুক কাঁচের চেয়েও ভঙ্গুর

আর ভেঙে ফেলা ছাড়া ঈশ্বরীর কোনো প্রিয় খেলা নেই

ঈশ্বরী শব্দে বিনয় রাখি
গায়ত্রী মন্ত্রে বৃষ্টি বেজে উঠুক
পৃথিবীর সমস্ত কাঁচ স্তোত্র গান করুক ঠিক সেই সময় –
যখন অনন্ত ভঙ্গুরতার ওপর মেঘ ভেঙে পড়ছে

 

চন্ডাল-কাব্য

ভুল শুধু ভুল ছাড়া অন্য কোনো শব্দের ধুনি জ্বালিয়ে বসিনি এ শব সাধনে এ যেন আত্ম সাধন নিজ মৃত দেহ দেখে হা হা হা হা হাসি পাচ্ছে মেঘ উড়ে যাচ্ছে রাতের

না চাওয়ার বৃত্ত বড়ো হতে হতে হতে হতে যেদিন এই পৃথিবী ঢেকে ফেলেছিলো ডোম সেইদিন বুঝেছিলো অস্তিত্বের জন্যই তাকে থাকতে হবে কেউ চাইবে না তবু অস্পৃশ্য চণ্ডাল ছোঁয়া বাঁচিয়ে রোজ নিজের মৃত দেহ দাহ করছে আর কেউ তাকে চাইছে না তবু অন্য কোনো গ্রহে প্রাণ নেই বলে নিজে শুধু থেকে যেতে হবে বলে এখনো এখনো এখনো

বার বার ভুল শব্দে হাত যাচ্ছে ধুনিতে আগুন বাড়ছে নিজের হাড় মজ্জা চড়চড় করে আগুনে ফাগুনে এক হয়ে লীন

জল ভেবে আর কত পানপাত্র হাতে তুলে নেবে তরল কঠিন বায়বীয় এ পৃথিবীর সমস্ত আগুন শুধু আমার বলে নিজের মৃতদেহের মাথায় করুণায় হাত রাখি ভাবি এ হাত যদি যদি যদি ভুল করেও অন্য কারোর হতো

অন্যের কথায় মনে পড়লো ভুল করে একবার আমি অন্য এক চণ্ডালের দেহে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছিলাম সে হট করে আগুন গুলো ছড়িয়ে দিলো ডালে আর বললো এই পৃথিবীতে সমস্ত আগুনের উত্তরাধিকার কবিদের বলে দাহ চিহ্ন কেউ নেবে না বলে কবিদের কেউ চায় না বলে কবিদের শব্দ ছাড়া অন্য কোনো ফুল নেই বলে মিথ্যে কি মিথ্যে শব্দের কাটা মুন্ডু হার গলায় পরিয়ে হেসে চলে যান জল

জলের পাশে শব সাধনা আত্মদহন ভুল শুধু ভুল শব্দ জ্বলে উঠছে ধুনি চণ্ডাল নদীর তীরে বসেও জল ছুঁতে পারে না বলে নিজের ভস্মাবশিষ্ট হাড় জলে ছুড়ে ফেলছে

সেই জল থেকে রোজ যে বাষ্প হয় তা দিয়ে একদিন কবিতার বৃষ্টি হবে সেই বৃষ্টিতে ঠিক
আমার চিতা নিভে যাবে
দেখো


Profile_Pic_Vivaswan_Dutta

পরিচিতি : বিবস্বান দত্তের বয়স ছাব্বিশ। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর। এই মুহূর্তে মত্ত আছেন গবেষণায়। বিবস্বানের বই পড়তে এবং মিষ্টি খেতে সবথেকে ভালোবাসে। প্রকাশিত বই- ‘বৈবস্বত’ (আদম, ২০১৯) এবং ‘খাতার পিছন পাতা’ (সৃষ্টিসুখ, ২০১৯)।

Facebook Comments
Advertisements

Leave a Reply