আপনি কি জানেন, অপরজন এখন প্রকাশনার পথে? অপরজন প্রকাশনীর ছয়টি বই এখন প্রকাশের অপেক্ষায়। বইগুলির নাম খুব শিগ্রীই জানানো হবে।

অনুবাদ কবিতা : হিন্দোল গঙ্গোপাধ্যায়

গ্রীক কবিতা – অর্থনৈতিক অবনমন ও ব্যয়সংকোচের আলোকে

দশম কিস্তি

Yannis Moundelas (Born Athens, Greece, 1982)

ইয়ানিস মৌন্ডেলাসের কবিতা বহুলভাবে আন্তর্জাল ও অন্যান্য স্থানে প্রকাশিত হয়েছে। কবি অনেকক্ষেত্রে ছদ্মনামও ব্যবহার করেছেন। গ্রীক ব্লগিং কমিউনিটিতে তিনি কবি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন এবং বহু ভাষায় তাঁর কবিতা অনূদিত হয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে স্প্যানিশ ও জাপানি ভাষাও। ‘Words without Borders’ এ প্রকাশ পেয়েছে তাঁর কবিতার ইংরাজি অনুবাদও। তাঁর এখনো কোন কবিতাসংগ্রহ প্রকাশিত হয়নি, অদূর ভবিষ্যতে হবে কিনা, তা নিয়ে কবি এখনো কোন স্থির সিদ্ধান্ত নেন নি।

মঙ্গল যখন পশ্চাতগামী

আঙুল, আঙুলের ডগা ও নখরপ্রান্ত ব্যাবহার করে
সে সাপের জিভ দিয়ে আগুন জ্বালায়
পিঠে কাগজের পাখা নিয়ে একটি বালক
নিছক বৃষ্টিফোঁটার জন্য আকুল আকাঙ্খায় থাকে
তার ভাবনায় বহ্ন্যুৎসব, আর হিংস্র ঘটনার দৃশ্যাবলী
পোলিথিনের স্বপ্নময় একতলার মেঝেতে শুয়ে বছরের পর বছর
যেখানে স্যাঁতস্যাঁতে ক্লেদ দীর্ঘস্থায়ী আর সেকেলে বিষ গড়িয়ে নামে দেওয়াল থেকে
নিজের হিজিবিজি সমস্ত লেখা গিলে ফেলে, সে আর ক্ষুধার্ত নয়
বরং জলের জন্য গুঙোচ্ছে
যা শীতকালের মত ঠান্ডা হলেও বরফাবৃত নয়
পোড়া সিগারেটের অবশেষ নিজের হাতের তালুতে গুঁজে দেয় সে
যথেষ্ট উত্তপ্ত হওয়ার পর,
সে ট্রেনের লাইনচ্যুতিতে শিস দেয়
তারপর আরেকটি সুখটান,
ধোঁয়াতে নেওয়া নিঃশ্বাস তাকে উত্তেজিত ফুসফুসের চরমতম দৃশ্যে নিয়ে যায়
তারপর শুধুই ডুবে যাওয়া…
এখানে তার জীর্ণ সমাধিতে
এতদিন যা যা ভয় দেখিয়েছে তাকে সে পেরিয়ে এসেছে
যা তাকে আঘাত করেছে এতদিন, বা যা যা ছিল বোধবুদ্ধির বাইরে
এখন সে অনেক সুদৃঢ়, ভস্মমাখা, আগুন দিয়ে বৃত্তাবৃত
এক থেকে আরেক সময়ে বারবার
তার কাগজের পাখাগুলি ছড়িয়ে সে তোমার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছে

[মূল গ্রীক থেকে ইংরেজি অনুবাদ – পিটার কনস্ট্যান্টাইন]

ছিন্ন মেঘেরা

একটা হাতি একদিন ভাবল
এভাবে বেঁচে থাকা তার পক্ষে ঠিক লাগসই নয়
বরং সময় এসেছে একটি প্রজাপতির মত উড়ে যাওয়ার
কিন্তু আপনারা জানেন কেন সে সফল হল না?
সে শুধু ওই ভাবনাটা নিয়েই চিন্তান্বিত ছিল
সে নিজের জন্য একটি চশমা বানাতে চায়নি
মাধ্যাকর্ষণকে জয় করার জন্য লড়েনি
ফুলে ভরা বাগানের ওপর দিয়ে উড়তে চায়নি

সে শুধু একটা প্রজাপতি হতে চেয়েছিল
যা কখনো সে হতে পারেনি
নিজের যথেষ্ট ওজনের ভারে সে ক্রমশ
হয়ে পড়ল স্থলমুখী
অন্য হাতিদের যারা প্রজাপতি হতে পেরেছে
বা সেই দুটো তিমি যারা ময়ূর হতে পেরেছিল
তাদের দেখে দেখে সে বৃদ্ধ হল
তার ধারণা, কেবল ধারণা হয়েই রয়ে গেল
আলোকশূন্য
ডানাহীন
যা কেবলমাত্র মৃত্যু তাকে এখন দিতে পারে

[মূল গ্রীক থেকে ইংরেজি অনুবাদ – পিটার কনস্ট্যান্টাইন]

Facebook Comments
Advertisements

Leave a Reply