বদরুদ্দোজা শেখু-র কবিতা

fail

গাঁয়ের দুপুর

যেখানে গাঁয়ের শেষে জামতলা বটতলা সাহানা পুকুর
সিঙোড়ি চুঙোরি পাতা টলোটল, নিঝুম দুপুর
পাখিদের কলরব লাল লাল বটফল জামফল খেতে
সেখানের মনের উঠোনে চটের আসন পেতে
ব’সে আছি কতোকাল,—চিমকুটে আষাঢ়ে শ্রাবণে
কলমি লতার বন বেড়ে উঠে তাজা ফনফনে
লাউ-ডগা চোখ মেলে, চিকচিকে পাতিহাঁসগুলো
ভেসে যায় শ্যাওলায় ঢেউ ভেঙে, সাদা বক দীঘল ছুঁচলো
চঞ্চু বাগিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে লম্বা পায়ে অপলক—
আলগোছে শিকার ধরার তার সাবলীল ছক
স্থৈর্যের মতন একাগ্র নিপুণ, পাশে চাঁদিলা দিঘির পাড়
কাজল জলের গভীরতা নিয়ে থাকে জল-জমিদার
এ তল্লাটে, খেটেখুটে কর্ম ক্লান্ত কাটাতে সময়
অনেকে আসেন এই রূপঙ্কর কালো-ছায়াময়
দিঘি-পাড়ের শীতল ভূত-বাগানের ছায়াতলে,
আমি ব’সে থাকি ওই আবহমান উন্মন মায়ার মহলে ।।

মাটি-মা

মঙ্গল বৃহস্পতি চাঁদ অন্ধকার শূন্য মহাকাশে
আমরা ঘুরে বেড়াই গবেষণা প্রাণের তালাশে
কিন্তু কোনোখানে নাই বিন্দুমাত্র দাঁড়াবার ঠাঁই,
ফিরে আসি মাটি-মা’র কাছে একান্ত অনন্যোপায় ।

এখানে দালান আছে, পাশাপাশি ক্লিন্ন কুঁড়েঘর
দৈন্য-দারিদ্র্যের সাথে সুখ দুঃখ নগ্ন আড়ম্বর
অনটন অপচয় বন্যা খরা অসমবন্টন,
ধরিত্রী-মাতার কাছে আছে তবু ভাঁড়ারের শত আয়োজন।

মন উচাটন হয়, অন্তহীন সময়-নামক পারাবারে
ব্রহ্মাণ্ডের রহস্যের কিনারা খোঁজার টানে যাই বারে বারে
আকাশে পাতালে বনে মেরুদেশে পাহাড়-চূড়ায়,
অবশেষে ফিরে আসি দাঁড়াবার একমাত্র পৃথ্বী-মৃত্তিকায়;
মাটির প্রজ্ঞায় আছে জীবনের জন্ম মৃত্যু বড়ো হওয়া আর বেঁচে থাকা
আমাদের অন্তিম আশ্রয় শুধু মাটি-মা’-ই,যাকে বলে জীবনের চাকা !!

নীড়

খড়কুটো কাঠি ঝুল পালক খুঁজে’ খুঁজে’
ঠোঁটে ব’য়ে নিয়ে যায় ব্যস্ত মুখ বুজে
ছোট ছোট পাখিগুলো, গড়ছে নূতন
নীড় তারা—সংসারের ক্ষুদ্র আয়োজন,
লেজঝোলা পাখি দুটো নারকেল পাতায়
ব’সে ভাবে কী -যেন কী, ঠোঁটের ডগায়
বিলি কাটে দু’জনায়, পাতা ছিঁড়ে’ ছিঁড়ে’
নিয়ে যায় বারে বারে প্রবৃত্তির নীড়ে
কাক বক ঘুঘু দেখি সমান উদ্যোগী
সবাই সেজেছে আজ দিব্য কর্মযোগী—
স্বপ্নের নীড় জাগে তাদের নয়নে,
কেবলই বিবাগী গান কোকিলের স্বনে!
কোথায় বাঁধবে বাসা? কোনো মগডালে
কোটরে বাতায় ঝোপে পছন্দ পোষালে,
পাখি কি স্বপ্ন দ্যাখে? ভবিষ্যৎ আঁকে?
স্বপ্ন কি স্যাঁকে তারা সময়ের বাঁকে?

এই নীড় এই অস্থির সময় ও সুখ
কোথাও দাঁড়িয়ে থাকে দিব্য স্বপ্নভুক—
ভুলচুক ভালবাসা পাশাপাশি হাঁটে
সখা সখী খুশী বুনে তার রাজ্যপাটে ।।

Facebook Comments

Leave a Reply