বেতার নাট্যোৎসব “ডাকঘর- রবীন্দ্রজয়ন্তী পর্ব”

fail

টালিগঞ্জ নিত্যনাট্য আয়োজিত বেতার নাট্যোৎসব “ডাকঘর- রবীন্দ্রজয়ন্তী পর্ব”

করোনা ভাইরাসের অভিঘাতে স্তব্ধ সভ্যতা।গৃহবন্দী আমরা সবাই।বুকে দুরু দুরু ভয়- মৃত্যুর – স্বজনের থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার। এমন দমবন্ধ করা সন্ত্রাসের সামনে মানব সভ্যতা আগে কোনদিন পরে নি।
এমতাবস্থায় থিয়েটার কিংবা নাট্যোৎসবের কথা ভাবাই যায় না। অথচ তেমনই ভাবনার সাহস দেখালো টালিগঞ্জ নিত্যনাট্য। ঘরে বসে বসেই তারা আয়োজন করে ফেলেছে বেতার নাট্যোৎসব। সোশাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে গৃহবন্দী মানুষগুলির বুকে একটু স্বস্তির পরমায়ু পৌঁছে দিতেই তাদের এই উদ্যোগ। তাদের এই নাট্যোৎসবের তারা নাম রেখেছে “ডাকঘর”। ২২-২৬ শে এপ্রিল ছিল ডাকঘরের প্রথম পর্ব। মোট পাঁচটি দল অংশ নেয় সেই পর্বে ( স্বপ্নচারী,নতুন পৃথিবী,সমযাত্রি, টালিগঞ্জ স্বপ্নমৈত্রী ও নিত্যনাট্য)।
এবার তারা আয়োজন করেছে ডাকঘরের রবীন্দ্রজয়ন্তি পর্ব। বিশ্বকবির ১৫৯ তম জন্ম দিবস উপলক্ষে কোলকাতা ও মফস্বলের ৭ টি দলের সাতটি রবীন্দ্রসাহিত্যনির্ভর নাটকে সেজেছে কবি পক্ষের সাতটি সন্ধ্যা। প্রথম দিন প্রখ্যাত নৃত্যশিল্পী তথা নাট্য ব্যক্তিত্ত্ব শ্রীমতি আলোকপর্ণা গুহ’র নির্দেশনায় পুষ্পক নাট্যগোষ্ঠী পেশ করে রবি ঠাকুরের ছোট গল্প অবল্ম্বনে ‘যজ্ঞেশ্বরের যজ্ঞ। দ্বিতীয় দিন ছিল অবচেতন নাট্য গোষ্ঠীর নাটক ‘সম্পত্তি সমর্পন’। পরিচালনায় সমুদ্র সিংঘ ও অর্ঘ্য মণ্ডল। তৃতীয় দিনের নাটক ডানপিটের প্রযোজনা ‘শেষ চিঠি’। পরিচালনায় দেবজ্যোতি চক্রবর্তী। এর পরের দিন সম্প্রচারিত হয় ঐক্যর নাটক ‘শাস্তি’। পরিচালনায় প্রিয়তোষ ব্যানার্জী। পঞ্চম দিনের নাটক বরানগর নান্দীরোল প্রযোজিত ‘শেষের রাত্রে’। পরিচালনায়- চয়ন দে। ষষ্ঠ দিনের নাটক বজবজ অঙ্গন নাট্য সংস্থার প্রযোজনায় ‘মুসলমানীর গল্প’। নির্দেশক শ্রী অসীম ভট্টাচার্য। আর শেষ দিন টালিগঞ্জ নিত্যনাট্যর নিজস্ব প্রযোজনা-‘ছুটি’।পরিচালনায় অতনু।
সাতদিন ব্যাপী এই নাট্যোৎসব পরিবেশিত হয় টালিগঞ্জ নিত্যনাট্যরfacebook page-এ।(facebook.com/tollygungeNN) নাটকগুলি এখনও facebook এ তাদের page-এ এখন বর্তমান।
আশা রাখি মারণ ভাইরাসের সাথে যুদ্ধে মানবসভ্যতার জয় হবেই।তবু সহস্র বিপদের মধ্যে দিয়ে চলছি আমরা। আর তখন বিশ্বকবির সেই ডাক বাজে কানে- “ বিপদে মোরে রক্ষ করো এ নহে মোর প্রার্থনা- বিপদে আমি না যেন করি ভয়” সেই ভয় কে জয় করার অঙ্গিকার নিয়েই পথ চলছে টালিগঞ্জ নিত্যনাট্য।

Facebook Comments

Leave a Reply