অনিকেশ দাশগুপ্ত-র কবিতা

fail

পরিত্রাতা

পুডিং আর কালো চা অহংকার হতে পারে –
এখন কুকুরের প্রতি অপ্রতুল স্নেহে হাতের শক্ত ছাল মেলে ধরো।
ভার লাঘবের জন্য কালো ট্রাঙ্ক,জমানো ট্রানজিস্টার অথবা
দেয়ালের মতো যা কিছু অভিপ্রেত
ওষুধ মাখানো অবশ আঙুলে পুঁছে পুঁছে স্থায়ী ভার মনে করো ।

অর্থহীন ট্রাঙ্ক কল নিয়ে এই বেঁচে ওঠা –
অর্থহীন সংখ্যাগুলি কাগজে লিখতে লিখতে পেন্সিল আরও
লাল মার্জিন সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন…
দু’জন বলছে আরো দু’জন তাঁবুর গল্প
তাঁবুর কাছে ঘন নিঃশ্বাসের গল্প
তাদের ঘিরে স্তরে স্তরে যেভাবে প্রতীক্ষা জ’মে উঠেছিল…

উট এবং রঙের টানাপোড়েন

উটের স্থিতিস্থাপক রক্ত না মানলেও
এই মরু সম্মোহনের কোন ব্যাখ্যা থাকতে পারে না
বসন্তের দাগ দেখে যেমন ঋতুর প্রলেপ না মানলেও চলে …
একটাই আলো একেকবার ফুঁ দিয়ে
ধবধবে সাদা করে তোলো
রূপালি রূপালি শরীর আর বিশৃঙ্খল এই আলো
রূপালি রূপালি শিরা আর বিকৃত এক ডালিম
এছাড়া চাবি আর ঘুমের কোন সম্পর্ক থাকতে পারে না
এছাড়া রং এবং মানুষের কোন সম্পর্ক থাকতে পারে না…

অন্ধত্বের আগে

চা চক্রে কাপ নামিয়ে রাখার এই ভিন্ন ভঙ্গিমায়
চোখ পড়েছিল এবং আলস্যভরা চলন
যেন ঘরের পর ঘর,অনেক উজ্জ্বল দরোজা সে দীর্ঘদিন
একইভাবে পেরিয়ে আসছে
হাসির মধ্যেও সেই চেনা রক্ষণশীলতা,যেন গাঢ় বেদনা
অবলীলায় আড়ালে রাখা হচ্ছে কেননা দর্শকমণ্ডলী
সুরের মূর্ছনায় আর শ্বাসযন্ত্রের গমকে
ধ’রে ফেলতে পারে আলোর কোন কারসাজি…
যেন অনেক সেতু পেরিয়ে রৌদ্রোজ্জ্বল জলাশয়ে এইমাত্র
অর্ধেক পা ডুবেছিল – এমন নির্ভার চলার ভঙ্গিমা…
অথবা উড়েই পার হয়েছে সে এত এত পথ
যেন শূন্যতাই প্রবল হয়
বাইরে ও ভেতরে,ভেতরে ও বাইরে,একই রকম স্থির শুন্যতা…

মীমাংসা

চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত শোনার পর সে এই সম্পর্ককে অস্বীকার করতে পারে
সূর্য পিঠে রেখে একটা অতল গহ্বরে যেহেতু লক্ষ্য রেখেছিল ।
হাতের ইশারায়,আমার অনুতাপগুলি চিহ্নিত হচ্ছে
যা দেখার – চটজলদি দেখে ফেলো যেমন খরগোশের ত্রুটিপূর্ণ নিঃশ্বাস
ঘোড়ার দীর্ঘ বলিষ্ঠ অনুসরণ,সিঁড়িটুকুই মনে রাখার শেষ প্রয়াসে
লাল ইটের সজ্জাবিন্যাস দু’চোখে বিঁধে
এখন কুঁকড়ে বসেছি এই জ্যামিতিক নির্লিপ্তির ভেতর…
দূরদূরান্ত থেকে বিশেষজ্ঞ আর টেলিফোন হাতে তাদের
পরীক্ষামূলক কথোপকথন – যা এখন উঠে আসবে সিদ্ধান্তের বদলে…
উঁচু টিলার ওপর গ্রীষ্মের কাঠফাটা রৌদ্রে
ধাতব মসৃণতাই এসবের নিয়ন্ত্রক
তারপর আলাদা ক’রে রেখো পশম আর পশমের বোতাম
ধাতু আর ধাতুর প্রবল রৌদ্র ।

Facebook Comments

Leave a Reply