অনিকেশ দাশগুপ্ত-র কবিতা

fail

অপূর্ণতা

সব আবিষ্কারের এক আবিষ্কার হয়ে বাঁচা
যেকোনো আবেগ যেহেতু শেষমেশ একটা ঝকঝকে লাল রং
আয়োজন, টুকরো টুকরো আউটলেট,
ভেতর-বাহির ছিল না অথচ,অবোধ গ্রাহক সংবেদিত হয়
জলের স্রোতের ওপর আমার সারফেসে বেড়ে চলে
হাত -পা ছড়ানো হাওয়াই মানচিত্র
স্তরে স্তরে আরও অনেক, সময় চেতনার বন্দি
সওদাগরের সবুজ ভেলার দিন
স্মৃতির ওপারে নড়বড়ে সাঁকোর হদিশ জানে কেউ কেউ
যেখানে জন্মাতীত অশ্বের পেখম খ’সে পড়ে অতলে

রমণ

দিগন্ত, একটা ভিড়ের মতন,
আধখোলা হাতিয়ারে ভরে আছে যেন দৃষ্টিপথ,
সব শান্তি, জড়তা ও প্যাচপ্যাচে রোমন্থনের ওদিকে
ওষুধগন্ধের অনুতাপে হেঁটে যাই –
শরীরী মুলাকাতের রোদে সরে আসে
নিভাঁজ পোশাক;
মাফলার গলার শোক, লাল নাইটল্যাম্পের সোজাসাপটা,
আড়ষ্টতা এইভাবে কেটে যাবে –
স্নেহ কঁকিয়ে উঠছে যেমন পাতালের ইকো
ভ্যাপসা টব, আদরের গিঁট খুলেছে প্রশ্ন ক’রে,
এখনও বাইরে ন্যাতানো ভোর,
পর্দার ওপারে, এটুকুই …

অনুমান

কোথাও না কোথাও মনোরম শহুরে সিঁথি
পার্কের বেঞ্চে, অজুহাতে একা একা, মোহ গন্ধ ভেসে আসে
গলির বাঁদিকে তুমুল ব্যস্ততা-তৃপ্তি-পাউডার ঘাম
এমন একটি ছবি, নিজেই একাকার, বীভৎস
পথ দেখানোর কেউ নেই, যেখানে আলো;
স্যাঁতস্যাঁতে সিঁড়ির নিকটে ধসে পড়ছে যত অস্বীকার
রেডিওর গান, উথলানো দুধ, সারাদিন গরম শ্বাসের পর
এই একটুকরো তারকাখচিত রাত
যেখানে আমার অবস্থান শুধু একটা আউটলাইন হয়ে
সাদা কাপড়ে ঢাকা –
ভয়ঙ্কর অ্যালার্মে তছনছ হয়ে যাচ্ছে শেষ ট্রাম তখন
কোথাও জোরে ডেকে উঠছে কেউ গানের মতো, আধো সুরে
এমন সুখ, এমন পরিতৃপ্ত নিশীথ আজ শেষ করতে চেয়েছিলাম,
বাইরে করুণ টিপ সাঁটানো সবুজ দেওয়াল, অশ্লীল লেখার
সাজঘরে কারও কাছেই সঠিক কোনো তথ্য নেই

Facebook Comments

Leave a Reply