যুগলবন্দী :: রঞ্জন মৈত্র ও রাজীব পাল

fail

[শুধু শারীরিক নয়, এই মানসিক দূরত্বের সময় আমরা চেয়েছিলাম শিল্পীরা কাছাকাছি আসুক। তাই এই উদ্যোগ – যুগলবন্দী। আলাদা আলাদা মাধ্যমে কাজ করা শিল্পীরা একজোট হয়েছেন। সৃষ্টি হয়েছে কবিতা থেকে ছবি বা ছবি থেকে কবিতা। এ’ভাবেই এ’ আয়োজনে কবি রঞ্জন মৈত্র ও শিল্পী রাজীব পাল।]


কবি পরিচিতি

রঞ্জন মৈত্র

৮০’র দশকের অন্যতম এই কবি নতুন কবিতা ধারার পথযাত্রী। তাঁর কাব্যগ্রন্থ ‘সুবর্ণরেখা রানওয়ে’, ‘সেভেন বেলোর বাড়ি’ ভীষণ উল্লেখযোগ্য সৃষ্টিকর্ম। এছাড়াও প্রকাশিত হয়েছে ‘কলোকাল ট্রেন’, ‘আলোতোয়া অডিও মঞ্জরী’, ‘পা-কে ব’লে দেখি’, ‘চাঁদ নামের অটোআলা’। প্রকাশিত তাঁর কবিতা সংগ্রহ, ‘রঞ্জন রশ্মি’।
প্রথম সম্পাদিত পত্রিকা ‘মুহুর্ত’ (বিষ্ণুপুর, বাঁকুড়া)। দীর্ঘদিন সম্পাদনা করেছেন ‘কবিতা ক্যাম্পাস’ পত্রিকা। ২০০২ সাল থেকে ‘নতুন কবিতা’ পত্রিকার সম্পাদনা কর্মে আছেন।

ছোট্ট আগুন

রঞ্জন মৈত্র

অন্ধকার জ্বেলে যে পথ ফুটে ওঠে
হাঁটতে হাঁটতে তুমি ইন্ধন
তিন ডিগ্রী ঠাণ্ডার উপযুক্ত জ্যাকেট
জানলায় জানলায় এই যে বেড়ানো
হিমচূড়া কেল্লা ও শালঘন ডাঙা
ক্লাসরুমেরও খোলা পাল্লা সাদা পাল্লাটি
আগুন লিখবো আর জড়ো হবে ঘুরঘুট্টি রাত
ঢেউ লিখলে পাল তুলে ভেসে যাবে রোদ
পথ তুমি গম্বুজে
আদিগন্ত গেহুঁর তুফানে
অন্ধ মোমের দিকে এগিয়ে আসছে ছোট্ট আগুন
চোখের নখের পা যেরকম পড়ে
যখন চিহ্নগুলো প্রশ্ন করে এই বাটে


শিল্পী পরিচিতি

রাজীব পাল

উত্তর কলকাতার বিবেকানন্দ’র পাড়ায় ওঁর বাড়ি। বিখ্যাত শিমলে পাড়ায়। তুমুল বনেদি বাড়ির ছেলে হলেও উনি মাটির মানুষ। যেমন বড় ওঁর মন, তেমন বড় ওর ক্যানভাসের সাইজ। একাধিক শিল্প প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেছেন, কলকাতায় এবং কলকাতার বাইরে। খুব দিলদরিয়া ও ভারতীয় রাগসঙ্গীতের একনিষ্ঠ শ্রোতা রাজীব বর্তমানে নেপালের একটি স্কুলের শিল্পকলার শিক্ষক হিসেবে কর্মরত।

বড় ক’রে দেখার জন্য ছবিটিতে ক্লিক করুন

Facebook Comments

Leave a Reply